(৭) উপাসনালয়

সিনোপসিস (৭) উপাসনালয়:- সিনাগগ, চার্চ, মসজিদ, মন্দির ও অন্যান্য উপাসনালয় নিয়ে পৃথিবীতে অদ্যাবধি যত মানুষ নিহত হয়েছে পৃথিবীর সকল যুদ্ধে নিহত মানুষের সংখ্যা একসাথে যোগ করা হলেও তার সমান হবে না। সুতরাং ধর্মের আগমন কি তাহলে মানুষের ধ্বংসের জন্য এসেছে।

অবশ্যই না, ধর্মকে বর্ম করে আধিপত্যবাদের লড়াই চলে এসেছে যুগ যুগ ধরে।উপাসনালয় বাড়ছে কিন্তু উপাসকের উদারতা কমেই চলেছে। এই টরন্টো শহরে উপাসনালয় বাড়ছে, বাঙালি কম্যুনিটি নিজেদের মসজিদ মন্দির গীর্জা বানাতে ব্যস্থ। তাতে খারাপ কিছুই ছিলনা কিন্ত সাথে বাড়ছে ফেতনা বা ঝগড়া। আধিপত্যবাদের লড়াইয়ে ধর্ম/ উপাসনালয় হচ্ছে বন্দী কমিটি নিয়ে ফেতনা, ইমাম /পুরূত / পাদ্রী  নিয়ে ফেতনা, ফান্ড নিয়ে ফেতনা, বলুন ফেতনা কোথায় নেই ?। এই ফেতনা সর্বস্ব উপাসনালয়ের প্রয়োজন আছে কি ?

 

If we get back to history of churches, manddirs, synagogues and even mosques, a grim fact we find. Huge bloodshed has taken places which in total have crossed the figures of all the wars. Particularly, the struggle between the Unitarians and Trinitarians, between the Trinitarians and the Protestants has demonstrated the heaviest tolls of life and property in the name of religion. In a Unitarian society, the sectional fighting has taken place almost in all religious factions which have raised questions about the motives of the henchmen of the worshipers. In fact, this has happened due to the utter motive of setting sectional hegemony in the name of religion.

In a multicultural setting in the city of Toronto, the situation is no good. Inter community tensions are rising because of the tendency of sidelining the others. This sort of attitude is not at all desired from any quarter and should be brought to a halt at all costs.

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*