(১৬):এয়ারপোর্ট সার্ভিসে প্রবাসীরা সন্তুষ্ট !

সিনোপসিস (১): এয়ারপোর্ট সার্ভিসে প্রবাসীরা সন্তুষ্ট !
এক সময়ের কসাইখানা নামে পরিচিত জিয়া বিমান বন্দর শুধুই তার নাম পাল্টায়নি , পাল্টিয়েছে  তার বদনামটিও । অন্ততঃ প্রবাসীদের মুখ থেকে এ ধরনের সুখকর কথা ঈদানিং প্রায়ই শুনা যাচ্ছে । ইমিগ্র্যাশন থেকে শুরু করে এয়ার লাইন্সের  কর্মকর্তা  এবং সর্বস্থরের কর্মচারীদের  মধ্যে  এক ভিন্নতা লক্ষ্য করা যায় । মনে হচ্ছে প্রফেশনালিজমের ছোয়া লাগতে শুরু করেছে । এয়ারপোর্ট-এ মান্যতা , আপ্যায়ন  ও সম্বোধন  এবং সার্ভিস  আজ উন্নত অনেক দেশের এয়ারপোর্ট গুলোর মতই মনে হচ্ছে ।

সাম্প্রতিক দেশ থেকে ফিরে আসা সিবিএন সম্পাদক ও অনেক প্রবাসীরাও একই মন্তব্য করেছেন । দেশের অনেক পরিবর্তন সেই সাথে  সার্ভিস সেক্টরের অনেক পরিবর্তন । এয়ারপোর্টে ইমিগ্রেশন কর্মকর্তাদের ব্যাবহারে আমি মুগ্ধ, সত্যিই মনে হয়েছে নিজের ঘরে  ফিরছি বললেন সিবিএন সম্পাদক । তবে ক্যানাডা আমেরিকা ইংল্যান্ড প্রবাসীরা যে সার্ভিস পান মধ্য প্রাচ্য ফেরতরা ততটা পান না । এর পেছনে অবশ্যি কারন রয়েছে । প্রবাসীরা যে দেশের অর্থনীতির লাগাম ধরে রেখেছেন তা হয়তোবা দেশের মানুষ অনুধাবন করতে শুরু করেছেন । ফিলিপিনোরা তাদের প্রবাসীদেরকে বিমান বন্দরে ফুলের মালা দিয়ে বরন করে; আমাদের ফুলের মালার প্রয়োজন নেই এই সার্ভিসের উত্তোরোত্তর সমৃদ্দ্বি হলেই আমরা  খুশী থাকবো ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*