নতুন দুই লক্ষাধিক বাংলাদেশির কর্মসংস্থান হবে সৌদি আরবে

সৌদি সরকার খুব শিগগিরই ৬টি মেগা সিটির কাজ শুরু করবে। সেই প্রকল্পে দুই লাখের বেশি বাংলাদেশির কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।সৌদি সরকারের সাধারণ ক্ষমার পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার রিয়াদের রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী একথা জানান।

তিনি বলেন, বিএনপির বিগত পাঁচ বছরের শাসনামলে মাত্র দুই লাখ লোক বিদেশ পাঠিয়েছে আর আমরা ক্ষমতায় আসার প্রথম বছরেই চার লাখ লোককে বিদেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছি।

জি টু জি ভিসার ব্যাপারে সরকারের পক্ষ থেকে জিরো টলারেন্সের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আমরা কোনো মতেই তৃতীয়পক্ষকে আমাদের ভেতরে আসতে দেব না। সৌদি সরকার আমাদেরকে অভিবাসন ব্যয় কমানোর জন্য বার বার তাগিদ দিচ্ছে। আমরাও চাই প্রবাসীরা ৩০ থেকে ৫০ হাজার টাকায় বিদেশ আসুক।

জি টু জি পদ্ধতি ব্যতীত অন্য কোনো পন্থায় সৌদি থেকে ভিসার আবেদন গেলে সেটা সঙ্গে সঙ্গে প্রত্যাখ্যান করতে রাষ্ট্রদূতকে নির্দেশ দেন প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী।

সৌদি সরকারের কাছে বাংলাদেশিদের বিরুদ্ধে ১০ হাজার ৬৩২টি অভিযোগের কথা উল্লেখ করে মোশাররফ বলেন, আমি সৌদি সরকারের কয়েক জন মন্ত্রী পর্যায়ের লোক এবং রিয়াদ গভর্নরের সাথে সাক্ষাৎ করেছি। তারা সবাই বলেছেন তোমাদের লোকেরা অপরাধ প্রবণ। বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়া সৌদি আরবে বাংলাদেশিদের ভিসা বন্ধ হওয়ার প্রধান কারণ।

তাই অপরাধ প্রবণতা কমাতে প্রবাসী নেতাদের কাজ করার আহবান জানান মন্ত্রী।

রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন, রিয়াদ মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট গোলাম মহিউদ্দিন,সাধারণ সম্পাদক সেলিম ভুইয়া, মহানগর আওয়ামীলীগ সভাপতি সালাউদ্দিন ফারুক প্রমুখ।

এছাড়াও মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্ম সংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব জাফর আহমেদ খান, জনশক্তি প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহা পরিচালক বেগম শামসুন নাহার, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক সুলতানা লাইলা হোসাইন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব মোহাম্মদ ইব্রাহিম, রিয়াদ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর এমদাদুল হক এবং কার্যালয় প্রধান আইয়ুব আলী প্রমুখ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*